জীবনের প্রশংসা করা

আমাদের জীবনের মান উন্নত করতে আমাদের নিজেদের উপর কাজ করার জন্য আমাদের সকলের কাছে যে স্বাধীনতা এবং সুযোগ রয়েছে সেটা উপলব্ধি করতে শিখুন।

ব্যাখ্যা

প্রায়শই, কিছু-কিছু ছোট সমস্যার কারণের আমরা স্বয়ং দুঃখ বোধ করি, যেমন আমরা যে রেস্তোঁরায় খাবার অর্ডার দিতে চেয়েছিলাম সেখানে খাবার শেষ হয়ে গিয়েছিল, আমরা যে সময় বা তারিখে বিমানে অথবা ট্রেনে ভ্রমণ করার জন্য টিকিট আরক্ষিত করতে চাই যেটা পাই না অথবা আমাদের সর্দি লেগে যায়, যার কারণে আমরা যখন সাঁতার কাটতে যেতে চাই আমরা যেতে পারি না। কিন্তু আমরা যখন উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমাদের জীবনের দিকে লক্ষ্য করি তখন আমরা বুঝতে পারি যে, আমরা কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে ভাগ্যবান। এর কারণ হল, আমরা এর চেয়ে আরও খারাপ পরিস্থিতি থেকে রেহাই পেয়ে যাই যেটা সত্যিই গঠনমূলক বা সার্থক কিছু করতে আমাদের ক্ষমতায় বাধা সৃষ্টি করত। এছাড়াও, আমাদের জীবনে আমাদের পরিস্থিতির উন্নতির জন্য, বিশেষ করে বৌদ্ধধর্মের মতো আধ্যাত্মিক শিক্ষা সম্পর্কে জানার অনেক সুযোগ রয়েছে।

আমরা যদি ২০১৫ সালের ভূমিকম্পের পর নেপালের মতো কোনও বিপর্যস্ত অঞ্চলে, দুর্ভিক্ষ অঞ্চলে বা যুদ্ধক্ষেত্রে আটকে থাকতাম অথবা যেখানে আধ্যাত্মিক অনুশীলন আইনের বিরুদ্ধে ছিল এবং সুযোগ-সুবিধা উপলব্ধ ছিল না, বা জেলখানায় হিংস্র অপরাধীদের সাথে বন্দি থাকতাম, বা যুদ্ধক্ষেত্রে সেনাবাহিনীর সাথে লড়াই করার জন্য থাকতে হতো, তাহলে আমরা কীভাবে বৌদ্ধ শিক্ষা এবং পদ্ধতিগুলি শিখতে পারতাম, আর সেগুলিকে অনুশীলন করতে পারতাম? অথবা আমরা যদি গুরুতরভাবে শারীরিক, মানসিক অথবা আবেগপ্রবণভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে থাকতাম, তাহলে আমাদের পক্ষে এটা কতদূর সম্ভব হতো, তবে হতো বিশেষভাবে কঠিন? অথবা আমরা যদি অত্যন্ত ধনী হতাম, আমাদের কখনোই কাজ-কর্ম করতে হতো না এবং সম্পূর্ণ জীবন পার্টি আর বিনোদনে পরিপূর্ণ থাকত, তাহলে আমরা আধ্যাত্মিক বিষয়ে আগ্রহী হতাম না। অথবা আমরা যদি আধ্যাত্মিক অনুশীলনের প্রতি একেবারে বদ্ধ মনোভাব নিয়ে থাকতাম বা তার বিরোধী হতাম তাহলে আমরা কীভাবে বৌদ্ধ শিক্ষাকে অনুশীলন করতে পারতাম?

এছাড়াও এখানে আমাদের অনেক সুযোগ আছে। শিক্ষাগুলির অনুবাদ আছে, সেগুলি গ্রন্থ এবং ইন্টারনেটে উপলব্ধ রয়েছে, পৃষ্ঠপোষকরা তাদের প্রকাশনাকে সমর্থন করেছেন, শিক্ষকরা উপলব্ধ আছেন, এমন ধর্ম-কেন্দ্র আছে যেখানে আমরা শিখতে পারি এবং মানুষ তাদের সমর্থন করছেন আর আমাদের মধ্যে আছে শেখার বুদ্ধি ও আগ্রহ।

আমরা যে এই খারাপ পরিস্থিতি থেকে মুক্ত এবং আমাদের জীবন এই সুযোগগুলি দ্বারা সমৃদ্ধ, এই বিষয়টি আমাদের জীবনকে অনন্য করে তোলে। আমাদেরকে আমাদের মূল্যবান জীবনের প্রতি আনন্দিত হতে হবে এবং এর পুরো সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে হবে।

ধ্যান

  • শ্বাস-প্রশ্বাসের উপর মনোনিবেশ করে শান্ত হন।
  • কল্পনা করুন যে, ভূমিকম্পের সময় আপনি নেপালের পাহাড়ে ট্রেকিং করছিলেন এবং আপনি সেখানে আটকে গিয়েছিলেন, সেখান থেকে বেরোনোর কোনও উপায় ছিল না আর ছিল না খাবার বা জল।
  • তারপর কল্পনা করুন যে আপনাকে বিমানের সাহায্যে বের করা হয়েছিল এবং আপনি বাড়ি ফিরতে পেরেছিলেন।
  • অনুভব করুন যে ঐ ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি থেকে মুক্ত হয়ে আপনি কতটা চমৎকার বোধ করবেন।
  • ঐ স্বতন্ত্রতার প্রতি আনন্দিত হন।
  • কল্পনা করুন সিরিয়া এবং ইসলামিক স্টেট আপনার শহরকে দখল করে নিয়েছে এবং আপনি তার মধ্যে আছেন আর সেখান থেকে আপনার বেরোনোর কোন উপায় নেই।
  • তারপর সেখান থেকে মুক্ত হয়ে যাওয়ার কল্পনা করুন।
  • আনন্দিত হন।
  • কল্পনা করুন যে আপনি একদল রুক্ষ কারাগারের সদস্যদের সাথে বন্দি হয়ে আছেন যারা হিংসাত্মক এবং দিনরাত ভয় দেখাতে থাকে।
  • তারপর জেলখানা থেকে মুক্ত হওয়ার কল্পনা করুন।
  • আনন্দিত হন।
  • সুদানের দুর্ভিক্ষে এবং খাদ্যাভাবের পরিস্থিতিতে অনাহারে থাকার কল্পনা করুন।
  • তারপর কল্পনা করুন একটু খাবারের এবং আপনার কাছে খাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত খাবার এবং পান করার জন্য জল রয়েছে।
  • আনন্দিত হন।
  • কল্পনা করুন আপনার অ্যালজাইমার রোগ হয়েছে এবং আপনি কিছু বা কাউকে মনে করতে পারছেন না, এমনকি সম্পর্কযুক্ত তিনটি শব্দও বলতে পারছেন না।
  • তারপর রোগমুক্ত হয়ে যাওয়ার কল্পনা করুন।
  • আনন্দিত হন।
  • তারপর ক্রমশ অনুভব করুন আপনি আপনার পিঠের এই বোঝাগুলি থেকে মুক্ত হয়ে গেছেন অর্থাৎ ভূমিকম্পের সময় নেপালে আটকে থাকা, আই.এস.আই.-এর অধীনে সিরিয়ায় আটকে পড়া, হিংসাত্মক দলের সদস্যদের সাথে জেলকক্ষে বন্দি থাকা, সুদানে দুর্ভিক্ষে ক্ষুধার্ত হওয়া এবং অ্যালজাইমার রোগে গ্রস্ত হওয়া।
  • আমাদের কাছে যে অবিশ্বাস্য স্বতন্ত্রতা আছে সেটা অনুভব করুন।
  • তারপর আপনার কাছে যে অবিশ্বাস্য সুযোগগুলি রয়েছে সেটা ভেবে দেখুনঃ শিক্ষাগুলির অনুবাদ আছে, গ্রন্থ এবং ইন্টারনেটে সেগুলি উপলব্ধ রয়েছে, পৃষ্টপোষকরা সেগুলির প্রকাশনাকে সমর্থন করেছেন, শিক্ষকরা রয়েছেন, এমন ধর্ম কেন্দ্র আছে যেখানে আমরা শিখতে পারি এবং মানুষ তাদের সমর্থন করছেন আর আমাদের মধ্যে শেখার বুদ্ধি ও আগ্রহ আছে।
  • সর্বশেষে, আপনার কাছে যে স্বতন্ত্রতা ও সমৃদ্ধকারী কারণগুলি রয়েছে সেসব কিছুর সম্পর্কে নিজেকে স্মরণ করিয়ে দিন। আর স্মরণ করিয়ে দিন যে বেশির ভাগ মানুষ এবং ইতিহাসের বেশিরভাগ সময়ের তুলনায় এটা কতটুকু অনন্য।
  • আনন্দিত হন এবং আপনার জীবনে যে অনন্য সুযোগ রয়েছে সেগুলিকে কাজে লাগানোর জন্য অবশ্যই সিদ্ধান্ত নিন এবং এটা নষ্ট করবেন না।

সারাংশ

আমরা যখন আমাদের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে চিন্তা-ভাবনা করি এবং ভাবি যে আমরা কতটা ভাগ্যবান হতে পারি, কমপক্ষে এই মুহুর্তে জীবনের ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে মুক্ত হয়ে, যে ভয়াবহ পরিস্থিতি আমাদের সংবেদনশীল এবং আধ্যাত্মিক বিকাশে কাজ করার কোন অবসর প্রদান করে না। আমরা যখন এই বিষয়ে অবগত হই তখন আমাদের কাছে যে সুযোগ এবং সম্পদ রয়েছে তার বিষয়ে গভীর উপলব্ধি গড়ে তুলি। যদিও কারও জীবন নিখুঁত নয় এবং কোন পরিস্থিতিও নিখুঁত নয় তবুও এরচেয়ে আরও কত ভয়াবহ হতে পারত তার তুলনায় আমরা সত্যিই খুব ভাগ্যবান। এই প্রশংসার সাথে আমরা আমাদের জীবনকে আরও উন্নত করার সুযোগগুলি কাজে লাগাতে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য প্রয়োজনীয় আত্মবিশ্বাস জাগাই।

Top